দৈনিক চোখের আলো

গাইবান্ধা সদর ৮নং বোলীয়া ইউনিয়ন খামার চাঁন্দের ভিটায় সন্ত্রাসী হামলা ।

 


(বিষ্ণু দেব বিশ্ব) গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি, দৈনিক চোখের আলো।


অপরাধ করার প্রবনতা তখনই বৃদ্ধি পায়  যখন অপরাধী অপরাধ করে পার পেয়ে যায় ।

এমন‌ই এক ঘটনা ঘটেছে গাইবান্ধা সদর ৮নং বোলীয়া ইউনিয়ন খামার চাঁন্দের ভিটা ৫নং ওয়ার্ডমকবুল হোসেনে বাড়িতে। 

২৪শে জুলাই ২০২৩ সধ্যা ৬টা সময় আসামী   বাদীর বাড়িতে গিয়ে বিভিন্ন অস্ত্রে সজ্জিত হইয়া সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে আক্রমণ করে এবং বাদীকে প্রচুর মারধর করে।

এক নম্বর আসামী শাহীন মিয়া,(২৫) পিতা মৃত শুকুর উদ্দিন, ২ সাইদুল ইসলাম, ৩,জাহেদা বেগম,স্বামী মোঃ সাইদুল ইসলাম, সকলের সাং খামার চাঁন্দের ভিটার সহিদ মনোমালিন্য চলছিল এমতাবস্থায় ইং ২৩/৭/২৩/ তারিখ অনুমান রাত ৮ ঘটিকায় সময় বসতবাড়ির জায়গায় নিয়ে আসামী গণের সহিত ঝগড়া বিবাদ শুরু হয়।

একপর্যায়ে আসামী গত হাতে লাঠি লোহার রড সহ আমার বসেত বাড়ি ভিতর আঙ্গিনায় অনধিকার প্রবেশ করেয়া আমার পুএবধু জেরিন বেগম,কে  মারপিট করে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ফুল জখম করে আমি সহ‌ আরো অনেকে আগাইয়া গিয়া আমার পুএবধু কে উদ্ধার করি।


উক্ত বিষয়ে আমি থানায় অভিযোগ দায়ের করিলে থানা পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে ইংরেজি ২৪/৭/2023 তারিখ বিকেল অনুমান 5 ঘটিকার সময় থানা পুলিশ আমার বাড়িতে আসিয়া আসিয়া বিষয়টি তদন্ত করে।

ইহাতে আসামিগণ আরো বেশি ক্ষিপ্ত হইয়া ওঠে ইংরেজি ২৪-৭-২০২৩ তারিখ বিকাল অনুমান ৬ ঘটিকার সময় আসামি গনের হাতে লাঠি লোহার রস সহ আরো বছর বাড়ির ভিতরে তখন ওঠ বিকাল অনুমান ৬ ঘটিকার সময় আসামিগণ হাতে লাঠি লোহার রড আমার বাড়ির আঙ্গিনায় অনধিকার প্রবেশ করিয়া অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে তখন আমার স্ত্রী কবিতা বেগম আমার ছেলে কবির মিয়া আগাইয়াপুত্রবধূর গলা চাপিয়া ধরিয়া শ্বাস রোধ করিয়া হত্যার চেষ্টা করে ।

আসামি জাহেদা বেগম আমার পুত্রবধূর গলায় থাকা ছয় আনা ওজনের স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায় (যার আনুমানিক মূল্য ৩০০০০হাজার টাকা) 

 সিনেমা স্টাইলে  আমার ছেলে কবির মিয়ার ঘরে প্রবেশ করিয়া ঘরে থাকা ইস্টিলের বাক্সের ভিতরে থাকা  ৪০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং ৩০০০০ টাকার অন্যান্য ক্ষতি সাধন করে  ।


ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী এক নম্বর শাহীন দুই নাম্বার সাইদুল তিন নাম্বার মোছাম্মৎ জাহেদা লাকি ৫ নাম্বার শারমিন ছয় জিম, সাইদুলের জামাই বাড়ি বানিয়ে চান এই ব্যক্তির জামাই গতরাতে ঘটনার পর  সন্ত্রাসীরদের সাথে করে শ্বশুর বাড়িতে গিয়ে অস্ত্র হাতে সবাইকে খুঁজে বেড়ায় যা এলাকাবাসী সবাই  জানে 

 এলাকার মানুষ জানান এরা খুব ভয়ংকর প্রকৃতির লোক  এবং এরা কাউকে ভয় করে না


Post a Comment

0 Comments