দৈনিক চোখের আলো

ধান কাটার কাস্তে দিয়ে এক শ্রমিকে গলা কেটে হত্যা!

 

ফটো সংগৃহীত....


ঢাকার ধামরাইয়ের চৌহাট ইউনিয়নের দ্বিমুখা এলাকায় ধানকাটার একজন শ্রমিককে সোমবার দুপুরে প্রকাশ্যে ধারালো অস্ত্র কাঁচি দিয়ে গলাকেটে খুন করা হয়েছে।

 স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দ্বিমুখা গ্রামের ইউনুস আলী নামের এক ব্যক্তি ধান কাটার জন্য গত বৃহস্পতিবার তিনজন শ্রমিক বাড়িতে নিয়ে আসেন। এদের সবার বাড়ি মানিকগঞ্জের দৌলতপুরের বাঘুটিয়া ইউনিয়নে।

সকালের খাবার খেয়ে শ্রমিক হৃদয় হোসেন মানিক, বাবুল ও আরিফ হোসেন ধান কাটতে মাঠে যায়। দুপুরে ধান ক্ষেতের পাশে একটি মেশিন ঘরে তাঁরা তিনজন মিলে বিশ্রাম নিতে যান। এ সময় পূর্বশত্রুতার জেরে হৃদয় হোসেন মানিক আরিফ হোসেনের গলায় ধান কাটার ধারালো কাস্তে চালিয়ে দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই আরিফের মৃত্যু হয়

এক শ্রমিকের চিৎকার শুনে এলাকাবাসী এগিয়ে গেলে দেখতে পায় এক শ্রমিকের গলাকাটা মরদেহ পরে আছে।

আসামীর জবানবন্দি অনুযায়ী জানা যায় পূর্ব শত্রুতার জেরে আরিফ হোসেন নামের এক ধান কাটা শ্রমিককে গলা কেটে হত্যা করেছেন আরেক শ্রমিক হৃদয় হোসেন মানিক।

শ্রমিক হৃদয় হোসেন মানিক শ্রমিক আরিফ হোসেনকে হত্যার বিষয়টি স্বীকার করে এবং বলে ‘আরিফ হোসেন কবিরাজি করে আমার স্ত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে যায়। এ ছাড়া সে এলাকার অনেক মেয়ের ক্ষতি করেছে। এ জন্য তাঁকে হত্যার পরিকল্পনা আমি অনেক আগে থেকেই করি। কিন্তু সুযোগ না পেয়ে শ্রমিক হিসেবে এক সাথে কাজ করতে এসে তাঁকে কাস্তে দিয়ে জবাই করে হত্যা করি।’

আটক হত্যাকরী হৃদয় হোসেন মানিক


নিহত আরিফের বাড়ি মানিকগঞ্জের দৌলতপুরের বাঘুটিয়া ইউনিয়নের পারুরিয়া গ্রামে বলে জানা গেছে।

পরে স্থানীয়রা হৃদয় হোসেন মানিক ও বাবুলকে আটক করে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ হৃদয় হোসেন মানিক ও বাবুলকে আটক করে এবং আরিফের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। এ ছাড়া বাড়ির মালিক ইউনুস আলীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।



Post a Comment

0 Comments